প্রবাসের রাজনীতি

শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র এখনো চলছে : সাহারা খাতুন


যুক্তরাষ্ট্র সফররত আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন বলেছেন, ”বিদেশি চক্রের সহায়তায় বিএনপি-জামায়াত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয়কেও হত্যার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে দেশে-প্রবাসে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। ”

গত সোমবার নর্থ ব্রঙ্কসের একটি মিলনায়তনে তার সম্মানে ব্রঙ্কস আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন আয়োজিত সংবর্ধনা ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানের প্রসঙ্গ টেনে অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন বলেন, ”বিমানের মধ্যে যে অবস্থা হয়েছে তাতেই বুঝা যায় নেত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র থেমে নেই। ঘাপটি মেরে থাকা খুনি মোস্তাক-জিয়া চক্র দেশটাকে আবারো পেছনের দিকে নিয়ে যেতে চাচ্ছেন। কারণ এদের রাজনীতির শুরুই অনিয়ম ও হত্যার ভেতর দিয়ে। নেত্রীকে হত্যার লক্ষ্যে কম করে হলেও ২১বার হামলা চালান হয়েছে। ”

”জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশকে এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন তিনি। বিশ্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। দেশের মানুষও বুঝতে পারছে আসলেই দেশের উন্নতি হচ্ছে। এ জন্যই বিরোধী দলের আন্দোলনে মানুষের সাড়া নেই। ”

ব্রঙ্কস আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইকবাল এবং নিউ ইয়র্ক স্টেট যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরীর যৌথ পরিচালনায় এবং ব্রঙ্কস আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইয়াহিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় সভা।

অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন এমপি বলেন, ”জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের গরিব-দুঃখী মানুষের ভাগ্য বদলের লক্ষ্যে বিনামুল্যে পড়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। প্রথম থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত বিনামুল্যে বই দিচ্ছেন, যা বছরের শুরুতেই ছাত্রছাত্রীদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হয়। দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। রাস্তাঘাট-অবকাঠামো উন্নয়নসহ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুতগতিতে। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জোট কিভাবে দেশের উন্নয়ন স্তব্ধ করা যায় সে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। বেগম জিয়া জামায়াতের সাথে হাত মিলিয়ে দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল। আগুন দিয়ে পেট্রলবোমা মেরে শত শত মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। দেশের সম্পদ ধ্বংস করেছে। তারা সফল হতে পারেনি। জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ পদক্ষেপে তাদের সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু তারা এখনো বসে নেই। তারা ষড়যন্ত্র করেই চলেছে কিভাবে দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করা যায়। কিভাবে দেশের উন্নয়ন ধ্বংস করা যায়। বিএনপি-জামায়াত এখন গুপ্তহত্যায় নেমেছে। কিন্তু দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের সে ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিচ্ছে। ”

অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন প্রবাসের সকল বাঙালিকে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্ধুদ্ধ হয়ে দেশ ও জাতির উন্নয়নে আরো অবদান রাখার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আল ফয়েজী। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

আপনার মন্তব্য জানান