আটলান্টা

৩২তম ফোবানা সম্মেলন হবে আটলান্টায়

ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের নবনির্বাচিত কর্মকর্তারা
ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের নবনির্বাচিত কর্মকর্তারা

ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের নবনির্বাচিত কর্মকর্তারা

২০১৮ সালের ৩২তম ফোবানা সম্মেলন আটলান্টায় আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত ৩০তম ফোবানা সম্মেলনের সমাপনী দিবসের (৪ সেপ্টেম্বর রোববার) সাধারণ সভায় সদস্যদের নিরঙ্কুশ ভোটে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সম্মেলনের আয়োজন করবে বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়া। অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনটি আটলান্টায় অনুষ্ঠিত বিগত সময়ের সম্মেলনগুলোর চাইতে গুণগত দিক থেকে আরও চৌকস, নান্দনিক, বর্ণাঢ্য, অর্থবহ ও সম্প্রীতির বিনি সুতার মালায় পরিপূর্ণ করে তোলা হবে বলে স্বাগতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে আহ্বায়ক জসিম উদ্দিন আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। আগের চাইতে আরও ভালো করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে আগামী বছর ফ্লোরিডায় ৩১তম সম্মেলন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্তটি গত বছরের নিউইয়র্কের সম্মেলনেই গৃহীত হয়েছিল বলে সেটি শুধু পুনঃ নিশ্চিত করা হয় এ বছরের সভায়। তবে তার পরের বছরের ৩২তম সম্মেলনটি আটলান্টায় আয়োজনের ঘোষণাটি ছিল একটি বড় খবর।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে আটলান্টায় এই একই সংগঠনের উদ্যোগে ২৭তম ফোবানা সম্মেলনের সফল সমাপ্তি ঘটেছিল এবং তখন জসিম উদ্দিন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ছিলেন। আর আহ্বায়ক ও সদস্যসচিবের দায়িত্ব পালন করেছিলেন ডিউক খান ও এম মওলা দিলু। স্মরণ করা যেতে পারে, ২০০৬ সালে জর্জিয়ায় বাংলাদেশ সমিতির আয়োজিত সম্মেলনটিরও আহ্বায়ক ছিলেন জসিম উদ্দিন।
এদিকে আটলান্টায় পাঁচ বছরের মাথায় আবারও ফোবানা সম্মেলনের ভেন্যু ঘোষণার খবরটি বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে জর্জিয়া রাজ্যের বাংলাদেশিদের মধ্যে আনন্দের সুবাতাস বইতে দেখা যায়। আটলান্টায় রোববার সন্ধ্যায় একটি অনুষ্ঠানস্থলে অনেকের মুখেই আটলান্টায় ৩২তম সম্মেলন আয়োজনের খবরটি ব্রেকিং নিউজের মতোই মূল আলোচনার বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়।
২০১৮ সালের আহ্বায়ক জসিম উদ্দিন ঘোষণাটি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সকলকে আটলান্টায় আসার জন্য অগ্রিম আমন্ত্রণ জানান এবং জর্জিয়া রাজ্যের বাংলাদেশিদের আতিথেয়তায় ওই সম্মেলনটি উত্তর আমেরিকার অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশিরা প্রাণোচ্ছল পরিবেশে উপভোগ করতে সক্ষম হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় টেলিফোনে জসিম উদ্দিন আগের সম্মেলনগুলির চাইতে ওই সম্মেলনটিতে আরও ভালো কিছু করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।
অন্যদিকে বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব জর্জিয়ার সভাপতি জসিম উদ্দিনের নেতৃত্বে ২০১৮ সালের অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনটির রূপরেখা, পরিকল্পনা ও আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে সমন্বয় করে নতুন প্রজন্মের অংশগ্রহণ ও বাঙালির সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় ভিন্নমাত্রার বৈচিত্র্য নির্মাণের লক্ষ্যে আটলান্টার সবাইকে নিয়ে শিগগিরই এক মত বিনিময় সভা আহ্বানেরও চিন্তা ভাবনা চলছে বলে জানা গেছে।
এ ছাড়া ওয়াশিংটনের ফোবানা সম্মেলনের ওই সভায় পরবর্তী এক বছরের জন্য কার্যকরী কমিটিতেও নতুন চমক এসেছে। নবগঠিত কমিটিতে সভাপতি ও নির্বাহী সেক্রেটারি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে আজাদুল হক ও এম মওলা দিলু।
উল্লেখ্য, হিউস্টনের আজাদুল হক এর আগে পর পর চার বছর ধরে ফোবানা কমিটির নির্বাহী সেক্রেটারি ও আটলান্টার এম মওলা দিলু আগের কমিটিতে যুগ্ম নির্বাহী সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
ফোবানার নতুন কমিটিতে নির্বাচিত অন্যান্য কর্মকর্তারা হলেন ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমগীর, যুগ্ম নির্বাহী সম্পাদক জাকারিয়া চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ শাহ হালিম। ২৫ সদস্যের কমিটিতে অন্যান্য আউটস্ট্যান্ডিং মেম্বার হয়েছেন নাহিদ চৌধুরী মামুন, জসিম উদ্দিন, এ টি এম আলম, নুরুল আমিন, আতিকুর রহমান, রেহান রেজা ও ড. আহসান চৌধুরী। এ ছাড়া আটলান্টা থেকে সংগঠন সদস্য হয়েছেন ডিউক খান ও আরিফ আহমেদ।
আটলান্টার সংগঠকদের মধ্যে ফোবানার কার্যকরী কমিটির ওই সভায় অংশ গ্রহণ করেছেন আটলান্টার জসিম উদ্দিন, ডিউক খান, এম মাওলা দিলু, আরিফ আহমেদ। এ ছাড়া সম্মেলনে অংশ নিতে আরেফিন বাবুল, গোলাম মহিউদ্দিন, গিয়াস উদ্দিন ভূঁইয়া, রোমেল হোসেইন খান, ওয়াসিউদ্দিনসহ বেশ কয়েকজন জর্জিয়ার সংগঠক উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য জানান