নিউ ইয়র্ক সংস্কৃতি ও বিনোদন

মোড়ক উন্মোচনে সুনামগঞ্জবাসীর মিলনমেলা

istiak-rupuপ্রবাসী ইশতিয়াক রুপুর মায়ার স্বপন গানের অ্যালবামকে ঘিরে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের পালকি সেন্টারে বসেছিল সুনামগঞ্জবাসীর মিলনমেলা। ব্যস্ততা ফেলে রোববার (২৪ জুলাই) সন্ধ্যায় প্রবাসীরা ছুটে এসেছিলেন সেখানে। এ সময় জল জোছনা আর বাউল সাধকদের রাজধানী বলে খ্যাত সুনামগঞ্জের মানুষ ক্ষণিকের জন্য ফিরে গিয়েছিলেন নস্টালজিয়ায়। হাছন রাজা থেকে রাধারমণ, দুরবিন শাহ থেকে শাহ আবদুল করিম বন্দনা চলেছে কয়েক ঘণ্টা। চলে জম্পেশ আড্ডাও।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিক পীর হাবিবুর রহমান, সংগীতশিল্পী মুত্তালিব বিশ্বাস, সাবেক সংসদ সদস্য লিয়াকত আলী, মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মুকিত চৌধুরী, কবি তমিজ উদ্দিন লোদী, কবি কাজী আতিক, মোশারফ আলম, কমিউনিটি অ্যাকটিভিস্ট আতাউর রহমান, মাহমুদুল হক চৌধুরী ও নুরুজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। তাঁরা সবাই ইশতিয়াক রুপুকে তাঁর গীত লেখনিসহ সাহিত্য ও কাব্যচর্চা চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ ও উৎসাহ দেন। জবাবে ইশতিয়াক রুপু বলেন, আমি যখন গীত রচনা ও অ্যালবামের পরিকল্পনা করি তখন অনেকেই পাগল বলেছেন। কিন্তু আজ আমি সফল হয়েছি। তিনি জানান, অ্যালবাম বিক্রির সব অর্থ তিনি সুনামগঞ্জের একটি সংগীত বিদ্যালয়ে দান করার পাশাপাশি দুজন দুস্থ শিল্পীকে সাহায্য করবেন।
ইশতিয়াক রুপুর গীত রচনায় মায়ার স্বপনের সুর ও সংগীত আয়োজন করেছেন আবিদ রনি। এ অ্যালবামে মোট আটটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন বাংলাদেশর বিখ্যাত শিল্পীরা। সেলিম চৌধুরী গেয়েছেন ‘কৃষ্ণপক্ষে না হয় কভু গানে কণা’ ও ‘না ভাসাইমু জলে কন্যা’। সুবীর নন্দী ‘শখের ঘুড্ডি উড়াই বন্ধু’, সালমা ‘না আসিও জলের ঘাটে’, এস আই টুটুল ‘ভাবের ঘরে পড়লে তালা’, তুলিকা চৌধুরী ‘দেখি স্বপনতে তোমার কায়া’ ও বারী সিদ্দিকী ‘ভাবের জগতে ভাবের মেলা’।
ড্রামস, কিবোর্ড, পারকাসন, পিয়ানো, সাউন্ড মিক্সিং ও মাস্টারিং করেছেন আবিদ রনি। তবলা ও ঢোলে পল্লব সান্যাল ও মিলন। রবাব ও ম্যান্ডেলিনে জালাল, বেহলায় সেলিম, বাঁশিতে জালাল ও গিটার কম্পোজে (শখের গুড্ডি) হৃদয় জেজ।
অ্যালবাম সম্পর্কে ইশতিয়াক রুপু বলেন, শখ ও তাড়না থেকে গান লিখি। আমার মধ্যে লুকিয়ে থাকা ডাহুক আমায় লিখতে বাধ্য করে। আমার মনের ডাহুক পাখি, যে তোমায় জানে, সেই অভাজন তাই গো সদা রাখে তোমায় মনে।

আপনার মন্তব্য জানান