আমেরিকা-বাংলাদেশ সম্পর্ক

ঢাকা-ওয়াশিংটন সম্পর্কে দারুণ উন্নতি হয়েছে

মার্কিন উপসহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মন্তব্য

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেছেন, ঢাকা-ওয়াশিংটন সম্পর্কের ক্ষেত্রে অত্যন্ত আকর্ষণীয় কিছু উন্নতি হয়েছে, যেমনটি বিশ্বে কখনো দেখা যায়নি।

মার্কিন উপসহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী মানপ্রীত সিংহ আনন্দ-এর বরাত দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের দীর্ঘ কয়েক দশকের অংশীদারত্ব কতিপয় অত্যন্ত আকর্ষণীয় উন্নতি লাভে সহায়তা করেছে, যা বিশ্ব কখনো দেখেনি।’ মানপ্রীত সিংহ আনন্দ টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের লিওন বি জনসন স্কুল অব পাবলিক অ্যাফেয়ার্সে একাডেমিক লেকচার সেশনে এ কথা বলেন। গত বৃহস্পতিবার ‘দ্য ইউনাইটেড স্টেটস, ইন্ডিয়া অ্যান্ড দ্য ফিউচার অব দ্য ইন্দো-প্যাসিফিক’ শীর্ষক বক্তৃতা দেন তিনি।

পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া-বিষয়ক ব্যুরোর দায়িত্বপ্রাপ্ত মানপ্রীত সিংহ আনন্দ আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র অপেক্ষাকৃত কম সময়ের মধ্যে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়েছে এবং সম্ভবত বাতাস আমাদের অনুকূলে রয়েছে। তবে এখনো যাওয়ার যে দীর্ঘ পথ রয়েছে, সে ব্যাপারে আমাদের কোনো বিভ্রান্তি নেই।’

এই মার্কিন কর্মকর্তা বাংলাদেশের খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন, দারিদ্র্যের হার নামিয়ে আনা এবং প্রসূতি ও শিশুদের বেঁচে থাকার হার অনেক বৃদ্ধি পাওয়াসহ নানা উন্নয়নের কথা উল্লেখ করেন। তিনি আন্তর্জাতিক শান্তি প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশের অবদানের কথা স্বীকার করেন।

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক উন্নয়ন প্রসঙ্গে ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক মানপ্রীত বলেন, নয়াদিল্লি শান্তিপূর্ণভাবে বাংলাদেশের সঙ্গে দীর্ঘদিনের স্থলসীমানা বিরোধ নিষ্পত্তি করেছে এবং বঙ্গোপসাগরের সমুদ্রসীমা বিষয়ে একটি জাতিসংঘ ট্রাইব্যুনালের রুলিং মেনে নিয়েছে।

আপনার মন্তব্য জানান