ওয়াশিংটন

ওয়াশিংটনে ২১ আগস্ট স্মরণে সভা

washi২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার প্রধান হোতাদের দ্রুত বিচার সম্পন্ন করে দায়ী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনপ্রবাসী আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে গ্রেনেড হামলা স্মরণে ভার্জিনিয়ার স্প্রিং ফিল্ডের নিরালা রেস্টুরেন্টে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এ দাবি জানান। ২১ আগস্ট রোববার সন্ধ্যায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের মেট্রো ওয়াশিংটন শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শিব্বীর আহমেদ। সভা পরিচালনা করেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক এম নবী বাকি।

সভায় বক্তব্য দেন আকতার হোসেন, আজম আজাদ, নুরুন নাহার, কামাল হোসেন, আলমগীর সোহেল, রোমিও হক, খিজির হাসান, রবিউল ইসলাম, রাশেদ জামান, সর্বজিৎ দাস, মোহসিনা জান্নাত, শাহেদা পারভিন, মোহাম্মদ শাহেন শাহ, নাসরিন আজিজ, জিয়াউদ্দীন খান, রাশেদুল হাসান খান ও মুক্তিযোদ্ধা হারুন চৌধুরী প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছিল না। যে অপশক্তি একাত্তরে হত্যা-ধর্ষণ-লুণ্ঠন করেছে, সেই অপশক্তিটি দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে এই গ্রেনেড হামলা করেছিল। সেদিন আর্জেস গ্রেনেড ছোড়া হয়েছিল। এসব গ্রেনেড তখন একমাত্র পাকিস্তানি সেনাবাহিনীই ব্যবহার করত। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, কারা সেদিন বঙ্গবন্ধু কন্যাকে হত্যা করে দেশের অস্তিত্বকেই বিপন্ন করতে চেয়েছিল। ১৫ আগস্ট, ২১ আগস্টসহ দেশব্যাপী মুক্তবুদ্ধি-মুক্তচিন্তার মানুষ ও ধর্মযাজক-পুরোহিত-ইমামদের হত্যার ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা। যারা ১৫ আগস্টে জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করেছে, তারাই ২১ আগস্টে বঙ্গবন্ধু কন্যা ও তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে চেয়েছে।

আপনার মন্তব্য জানান